DMCA.com Protection Status
ADS

সরকার পরিবর্তনে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের বিকল্প নেইঃনিউজার্সী বিএনপির সভায় শামসুজ্জামান দুদু

ক্যাপ্টেন(অবঃ)মারুফ রাজুঃ বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, পঁচাত্তরের ঐতিহাসিক সাতই নভেম্বরের ঘটনা বাংলাদেশের সকল আধিপত্যবাদ আর ষড়ন্ত্রের বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক সিপাহী-জনতার বিজয়ের প্রতীক। সাতই নভেম্বর হচ্ছে গণতন্ত্রের পক্ষে পরিবর্তনের একটি বিপ্লব। এই দিনে দেশের সিপাহী-জনতা শহীদ জিয়াকে যথাযথ মর্যাদায় স্থান দিয়ে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে রক্ষা করেছেন।

তিনি বলেন, দেশের মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা, বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি আর তারেক রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের আন্দোলনে দেশ ও প্রবাসের জনগণ আজ ঐক্যবদ্ধ। বলেন, ৭১ এর স্বাধীনতা আজ ভলুন্ঠিত, সরকার জণগনের মানবাধিকার হরণ করে নিয়েছে, নেই জীবনের নিশ্চয়তা। সেই অধিকার প্রতিষ্ঠার নবতর আন্দোলন বর্তমানে চলমান। তাই সরকার পরিবর্তনে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের কোন বিকল্প নেই।

 

বিএনপি নেতা অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন ও আক্তার হোসেন বাদলের নেতৃত্বাধীন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র নিউজার্সী শাখার উদ্যোগে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিন এবং জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় ঢাকা থেকে মোবাইলে সংযুক্ত হয়ে শামসুজ্জামান দুদু ভার্চ্যুয়ালী বক্তব্য রাখেন। খবর ইউএনএ’র।

 

কেন্দ্রীয় বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুঃ

অপরদিকে সভায় অতিথি বক্তারা তাদের বক্তব্যে আবারো প্রবাসের ত্যাগী নেতা-কর্মীদের মূল্যায়নের পাশাপাশি সম্মেলনের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠনের দাবী জানিয়ে বলেন, আমাদের রাজনৈতিক আদর্শ স্বাধীনতার ঘোষণক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান, আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আর আগামী দিনের নেতা তারেক রহমান। এর বাইরে আমাদের কোন নেতা-নেত্রী, আদর্শ নেই। তাই ‘ডিজিটালী-ভাচ্যুয়ালী’ কমিটি নয়, অ্যাকচ্যুয়াল কমিটি সময়ের দাবী। বক্তারা বলেন, বিএনপির নেতৃত্বে দেশের মানুষ শেখ হাসিনা সরকারের অন্যায়-অবিচার, অপরাধের বিরুদ্ধে জেগে উঠেছে, গণ জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। পদ-পদবী, ক্ষমতা নয়, জনগণের ভোটার অধিকার প্রতিষ্ঠায় যুক্তরাষ্ট্র বিএনপিকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

শনিবার (১৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় নিউজার্সী রাজ্যের পেটারসন সিটির স্টার রেস্টুরেন্টে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন এবং প্রধান বক্তা ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাবেক যুগ্ম সম্পাদক, মূলধারার রাজনীতিক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আক্তার হোসেন বাদল। এছাড়াও সম্মানিত অতিথি ছিলেন সিলেট জেলা বিএনপি নেতা এডভোকেট মজিবুর রহমান, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র প্রধান সমন্বয়কারী ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল খালেক, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন কচি, সাবেক সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ওমর ফারুক, নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপির সভাপতি সালেহ আহমেদ মানিক ও সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শিপন, নিউইয়র্ক সিটি বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান।

নিউজার্সী স্টেট বিএনপির সভাপতি নুরুল ইসলাম খসরুর সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠান যৌথভাবে পরিচালনা করেন আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম ও যুগ্ম সম্পাদক নবীন হোসেন। সভায় অতিথিবৃন্দ ছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রখেন নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি মোস্তফা কামাল মুকুল, নিউজার্সী স্টেট বিএনপির উপদেষ্টা এডভোকেট মুক্তাদির, ডা. কাপ্তান মিয়া, সহ সভাপতি হিমেল চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শাহজাহান, নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হোসেন মোহাম্মদ মনির ও মীর হোসেন, প্রচার সম্পাদক তাইবুর রহমান, বিএনপি নেতা এনায়েত খান, ফুল মিয়া, প্রমুখ।

সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত, বিশেষ দোয়া পরিচালনা ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিন্টু আলম।

সভায় অধ্যাপক দেলোয়ার বলেন, ’৭৫ এর সাতই নভেম্বর ঘটনা ছিলো একটি ষড়যন্ত্র। কিন্তু দেশপ্রেমিক সিপাহী-জনতা সেই ষড়যন্ত্র প্রতিহতের মাধ্যমে জিয়াকে মুক্ত করে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে রক্ষা করেন। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, জিয়া যদি ৭ নভেম্বরের বেনিফিসিয়ারী হস, তাহলে শেখ মুজিবের মৃত্যুর পর আজকে কি শেখ হাসিনা বেনিফিসিয়ারী নন? তিনি বলেন, সামরাজ্যবাদী, শোষকদের স্বার্থে আজ বাংলাদেশের ইতিহাস বিকৃত করা হচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ আর দেশের জনগণ, দেশের স্বাধীনতা রক্ষায় তারেক রহমানের ‘টেক ব্যাক বাংলাদেশ’ আন্দোলন সফল করার মাধ্যমে ‘স্বৈরাচারী শেখ হাসিনার সরকার’-এর পতন ঘটাতে হবে। এই আন্দোলনে প্রবাসীদের ভূমিকা রাখতে হবে, জিয়ার আদর্শে একাত্তরের চেতনায় গর্জে উঠতে হবে।

আক্তার হোসেন বাদল বলেন, তিনি অভিযোগ করে বলেন ভার্চ্যুয়ালী কমিটি করার মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র নেতা-কর্মীদের উপর ষ্টীম রোলার চালানো হচ্ছে। এতে ত্যাগী নেতা-কর্মীরা মূল্যায়িত হচ্ছে না। তাই আমরা কোনভাবেই ‘ভাচ্যুয়ালী কমিটি’ মানি না, মানবো না, আমরা সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি চাই। বলেন, আমরা পদ-পদবীর জন্য নয়, দলের মধ্যে গণতন্ত্র চাই, যোগ্য নেতৃত্ব চাই। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া আর তারেক রহমানের নেতৃত্বে আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি, ঐক্যবদ্ধ থাকবো।এডভোকেট মজিবুর রহমান বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র জন্য সুখবর আছে, অচিরেই নতুন কমিটি আসছে। তিনি দলের নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থেকে দেশে সরকার বিরোধী আন্দোলনে ভ’মিকা রাখার জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহবান জানান।উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানটি আয়োজনে বিশেষ সহযোগিতায় ছিলেন নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিন্টু আলম। প্রচন্ড ঠান্ডা উপেক্ষা করে সভায় অর্ধ শতাধিক নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

Share this post

scroll to top
error: Content is protected !!