DMCA.com Protection Status
ADS

হঠাৎ জ্বরে আক্রান্ত বেগম খালেদা জিয়াঃঅন্যান্য চিকিৎসা সংক্রান্ত কারনে পেছালো দেশে ফেরা

Bangladesh-government-locked-Khaleda-in-officeক্যাপ্টেন(অবঃ)মারুফ রাজুঃ  লন্ডনে হঠাৎ জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন দেশমাতা বেগম খালেদা জিয়া। ফলে যুক্তরাজ্যের রাজনৈতিক নেতা ও উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কয়েকটি সাক্ষাতের কর্মসূচি পেছানো হয়েছে।

এছাড়াও দেশমাতা বেগম খালেদা জিয়ার হাঁটুর চিকিৎসা চললেও একটি চোখের অপারেশন এখনও হয়নি। এসব কারণে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর দেশে ফেরার সময় কিছুটা পিছিয়ে গেছে।

জানা গেছে, চলতি মাসের শেষে বা নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে দেশে ফিরতে পারেন তিনি। এদিকে দেশে জঙ্গি হামলায় দুজন বিদেশী নাগরিক নিহত হওয়ার ঘটনায় উদ্ভূত পরিস্থিতিকে সামনে রেখে দেশমাতা খালেদা জিয়ার দেশে ফেরা নিয়ে রাজনৈতিক প্রচারণা চলছে।

কেউ কেউ বলার চেষ্টা করছেন, খালেদা জিয়া আর দেশে ফিরবেন না। তবে ২০০৭ সালের জরুরি অবস্থার সময়ে প্রচণ্ড চাপ সত্ত্বেও দেশত্যাগ করেননি তিনি।

জানা গেছে, চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্য সফরে গেলেও দেশে ফেরার জন্য ব্যাকুল হয়ে আছেন দেশমাতা খালেদা জিয়া। চিকিৎসা সম্পন্ন না হলেও দেশে দুজন বিদেশী নাগরিক ‘জঙ্গি’ হামলায় নিহত হওয়ার পর দেশে ফিরতে তাড়াহুড়া করছেন তিনি। এজন্য তিনি বিমানের টিকিটও বুকিং দিয়েছিলেন। কিন্তু চিকিৎসকের বারণের কারণে লন্ডনে নির্বাসিত বড় ছেলের বাধার মুখে ওই বুকিংও বাতিল করা হয়েছে।

তবে খালেদা জিয়ার নির্দেশে আগামী ২২ অক্টোবর আবার বিমানের টিকিট বুকিং দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে চিকিৎসা কার্যক্রম সম্পন্ন হলে ওই দিনই দেশে ফিরবেন তিনি।

দেশমাতা খালেদা জিয়ার চিকিৎসার সার্বিক তত্ত্বাবধান করছেন তার পুত্রবধূ ডা. জোবায়দা রহমান, এ কথা জানিয়ে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এমএ মালেক বলেন, “শিগগিরই বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসার প্রক্রিয়া শেষ হচ্ছে।”

এ বিএনপি নেতা জানান, এ সপ্তাহে লন্ডনে যুক্তরাজ্য বিএনপির উদ্যোগে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সঙ্গে মতবিনিময়ে অংশ নেবেন খালেদা জিয়া। সেখানে তাকে সংবর্ধনাও দেবেন প্রবাসী বিএনপির নেতাকর্মীরা। উল্লেখ্য, গত ১৫ সেপ্টেম্বর ত ৯টা ৪৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ৫৮৫ ফ্লাইটে করে লন্ডনের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়েন খালেদা জিয়া। চোখের চিকিৎসার জন্য লন্ডন গেলেও সব কিছু ছাপিয়ে যায় সাবেক রাষ্ট্রপতি শহীদ জিয়ার পরিবারের সদস্যদের আট বছর পরে স্বপরিবারে ঈদ উদযাপনের বিষয়টি।

কুখ্যাত ১/১১ এর প্রেক্ষাপটে দীর্ঘ ৮ বছর ধরে লন্ডনে সপরিবারে বসবাস করছেন বড় ছেলে দেশনায়ক তারেক রহমান। আর মালয়েশিয়ায় বসবাস করছেন ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী ও দুই মেয়ে। তারাও খালেদা জিয়ার সফর উপলক্ষে লন্ডনে যান। ফলে পরিবারের একমাত্র অভিভাবক খালেদা জিয়ার সাথে সবাই এক সাথে ঈদ করার সুযোগ পান।

Share this post

scroll to top
error: Content is protected !!