DMCA.com Protection Status
ADS

কুয়েতি অভিবাসীর গুলিতে চার মার্কিন মেরিন সেনা নিহত

usmarineকুয়েতি বংশোদ্ভূত এক যুবকের গুলিতে চারজন মার্কিন মেরিন সেনা নিহত হয়েছেন। নিহতরা সবাই মার্কিন সেনা বাহিনীর বিশেষ ইউনিট ইউএস মেরিনের সদস্য।

এ ঘটনায় নৌ বাহিনীর দুটি ভবনে আরো বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের টেনিসি অঙ্গরাজ্যের চাট্টানুগা নগরে এ ঘটনা ঘটে। একজন মার্কিন পুলিশ কর্মকর্তা এ তথ্য জানান।

২৪ বছর বয়সী ওই যুবকের নাম মোহাম্মদ ইউসুফ আব্দুল আজিজ। পরে পুলিশের সঙ্গে গুলি বিনিময়ে তিনিও নিহত হন। হামলাটি অভ্যন্তরীণ বা আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অংশ কিনা সেটা খতিয়ে দেখছে মার্কিন কর্তৃপক্ষ।

মার্কিন নৌ বাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, দেশটির নৌ বাহিনীর একটি রিক্রুটমেন্ট সেন্টারে প্রথম হামলাটি হয়। ভবনের দিকে গুলি ছুড়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ হামলাকারীকে ধাওয়া করে। পরে নৌ বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন তিনি। হামলায় নিহত চারজনই মার্কিন সেনা বাহিনীর একটি এলিট দল ইউএস মেরিনের সদস্য বলে নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ। হামলায় আহত আরো দুইজন চিকিৎসা নিচ্ছেন এবং বাকি একজন চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল ত্যাগ করেছেন।

এই ঘটনার পর চাট্টানুগা থেকে কয়েক মাইল দূরে হামলাকারী ওই ব্যক্তি যে বাসায় থাকতেন, সেখানে অভিযান চালায় মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই। সংস্থাটি বন্দুকধারীর পরিচয় নিশ্চিত করেছে। তবে ঠিক কি কারণে তিনি হামলাটি করেছিলেন তার উদ্দেশ্যে এখনি বলছেন না মার্কিন কর্তৃপক্ষ।

এফবিআই’র একজন এজেন্ট বলছিলেন, ‘এই ঘটনার সঙ্গে সম্ভাব্য সমস্ত দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এটা কোনো অভ্যন্তরীণ বা আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অংশ নাকি সাধারণ অপরাধমূলক ঘটনা সেটা বের করার জন্য কাজ চলছে।’ ধারণা করা হচ্ছে, মোহাম্মাদ ইউসুফ আব্দুল আজিজ নামে হামলাকারী ওই ব্যক্তি কুয়েতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।

তবে বেশ কয়েক বছর ধরে তিনি আমেরিকায় বসবাস করছিলেন। মাদক গ্রহণ করে গাড়ি চালানোর দায়ে এ বছরের শুরুতে একবার পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন তিনি। এদিকে, মার্কিন কর্তৃপক্ষ বলছে, নিহত আব্দুল আজিজের সঙ্গে ইসলামিক স্টেটের কোনো যোগসূত্র আছে কিনা সেটা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

Share this post

scroll to top
error: Content is protected !!