DMCA.com Protection Status
ADS

ঢাকা বারের নির্বাচনঃ বিএনপি-জামায়াতের নিরঙ্কুশ বিজয়

DHAKA_BER_857715978 দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম বার খ্যাত ঢাকা আইনজীবী সমিতির ২০১৫-১৬ বর্ষের নির্বাচনে সভাপতি পদে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেলের মাসুদ আহমেদ তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক পদে একই প্যানেলের ওমর ফারুক ফারুকী জয়লাভ করেছেন।

১০টি সম্পাদকীয় পদের ৮টিতেই জিতেছেন বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেলের প্রার্থীরা। শুধুমাত্র সিনিয়র সহ-সভাপতি ও ট্রেজারার পদে জিতেছেন আওয়ামী লীগ সমর্থীত সাদা প্যানেলের প্রার্থী। এছাড়া সবুজ প্যানেল থেকে কোনো প্রার্থী পাস করেননি।

১৫টি সদস্য পদের মধ্যে ১২টিতে জিতেছেন নীল প্যানেলের প্রার্থীরা। সাদা প্যানেলের প্রার্থীরা জিতেছেন মাত্র ৩টি পদে।

মোট ২৫টি পদের মধ্যে বিএনপি সমর্থিত নীল প্যানেল পেয়েছে ২০টি। আর আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেল পেয়েছে ৫টি আসন।

শনিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৩টার দিকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট এসএম আলতাফ হোসেন এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

সভাপতি পদে বিজয়ী হয়েছেন নীল প্যানেলের মো. মাসুদ আহমেদ তালুকদার। তিনি সাদা প্যানেলের সাইদুর রহমান মানিককে ২৩০ ভোটের ব্যাবধানে পরাজিত করেছেন। মাসুদ আহমেদ তালুকদার পেয়েছেন ৪ হাজার ৫৬২ ভোট। সবুজ প্যানেলে আমিনুর রহমান খান পেয়েছেন ৯০ ভোট।

সাধারণ সম্পাদক পদে নীল প্যানেলের ওমর ফারুক ফারুকী ৫৮৬ ভোটের ব্যাবধানে পরাজিত করেছেন সাদা প্যানেলের মো. আয়ুবুর রহমানকে। ফারুকী ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৬৪৩ ভোট। সবুজ প্যানেলে আফতাব হোসেন মোল্লা পেয়েছেন ১৬৬ ভোট।

সহ-সভাপতি পদে নীল প্যানেলের হারুন রশীদ খান ৪ হাজার ৫৭৭, সিনিয়র সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে হাফিজুর রহমান হাফিজ ৪ হাজার ৪২৪, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে তাহেরুল ইসলাম তৌহিদ ৪ হাজার ৮১৬, লাইব্রেরিয়ান পদে মাজেদুর রহমান মামুন ৪ হাজার ৮৯২, সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে আকলিমা আক্তার আলো ৪ হাজার ৩৬৬ ও দফতর সম্পাদক পদে শেখ আলাউদ্দিন ৪ হাজার ৬৩৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে সাদা প্যানেলের মোশারফ হোসেন ৪ হাজার ৪৭৩, ট্রেজারার পদে সাদা প্যানেলের মকবুল হোসেন নীল প্যানেলের মো. আবু বাক্কার সিদ্দিককে ৩১ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন। মকবুল হোসেন ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৪৪৩ ভোট।

এছাড়া সদস্য পদের বিজয়ীরা হলেন, মোহাম্মাদ আব্দুল হান্নান খন্দকার (নীল), মোহাম্মাদ বিল্লাল হোসেন (নীল), মজিবর রহমান (নীল), ফাতিমা ইয়াসমিন (নীল), মিজানুর রহমান মিজান (নীল), শাহনাজ পারভীন জোসনা (নীল), তপো গোপাল ঘোষ (সাদা), মোস্তফা কামাল খান (নীল), শাহ আলম (নীল), মোহাম্মাদ আবুল কাশেম (নীল), মোহাম্মাদ কামাল হোসেন (নীল), শফিকুল ইসলাম(নীল), রেহানা পারভীন (নীল), ফাতেমাতুজ জহুরা মনি (সাদা), লিলিয়া আক্তার লিলি (সাদা)।

ঢাকা আইনজীবী সমিতির ২০১৫-১৬ বর্ষের নির্বাচনে দুই দিনব্যাপী ভোটগ্রহণ করা হয়। বুধবার সকাল ৯টায় ঢাকা বারের আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে এ ভোটগ্রহণ শুরু হয় এবং একটানা চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

মাঝখানে শুধুমাত্র দুপুর একটা থেকে দুইটা পর্যন্ত এক ঘণ্টা বিরতি দেওয়া হয়। এরপর ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে। বৃহস্পতিবারও একইভাবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হয়।

ঢাকা বারের ২৫টি পদের বিপরীতে এবারের নির্বাচনে ৬১ জন প্রার্থী অংশ নেন। নির্বাচনে মোট ভোটার ছিলেন ১৫ হাজার ৩৭২ জন। যা গতবারের চেয়ে এক হাজার ৬২ জন বেশি। গতবারের ভোটার সংখ্যা ছিল ১৪ হাজার ৩১০ জন। দুই দিনে ৯ হাজার ৯২ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

নির্বাচনের মাসখানেক আগে থেকেই উভয় প্যানেলের প্রার্থীরা ব্যাপক প্রচারণা শুরু করেন। ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ ছাড়াও লিফলেট, কার্ড, এসএমএস, ভয়েস এসএমএম, ফেসবুক, ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারসহ মোবাইলে ফোন করেও জোর প্রচারণা চালান প্রার্থীরা।

গত ২০১৪-১৫ বর্ষের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেলের ব্যাপক ভরাডুবি হয়। ২৫টি পদের বিপরীতে তারা মাত্র ছয়টি সদস্য পদ পায়। অপরদিকে সম্পাদকীয় পদের দশটিসহ বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেল ১৯টি পদে জয়লাভ করে।

এবারের নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি, সিনিয়র আইনজীবী এসএম আলতাফ হোসেন। নির্বাচনে ছয়জন কমিশনার অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম হিরন, অ্যাডভোকেট হাজী মো. মোহসীন, অ্যাডভোকেট আহমদ উল্লাহ আমান, অ্যাডভোকেট মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর, মো. শামসুজ্জামান, মো. মতিউর রহমান ভুইয়াসহ নির্বাচন কমিশনের ৮৬ জন কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করেছেন।

 

Share this post

scroll to top
error: Content is protected !!