DMCA.com Protection Status
ADS

সাগর-রুনিসহ চাঞ্চল্যকর ২৫ মামলা নিয়ে চরম বেকায়দায় র‌্যাব

image_84725_0সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা মামলাসহ চাঞ্চল্যকরএবং অমিমাংসিত ২৫টি মামলার তদন্ত দীর্ঘদিনেও শেষ করতে পারেনি এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটলিয়ন (র‌্যাব)। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আদালতের নির্দেশে তদন্তভার পেয়েও রহস্যের কিনারায় পৌঁছতে পারছে না তারা। তবে র‌্যাব কর্মকর্তারা বলছেন, গত ১০ বছরে ১ হাজার ১২৭টি মামলার তদন্তভার পেয়ে তারা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সফল। এক হাজার ১১টি মামলার অভিযোগপত্র এবং ৬২টি মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছে।

তবে সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ড, পাঁচ কোটি টাকার সোনার চালান, মিল্কি হত্যা, রামপুরায় সাংবাদিক আফতাব আহম্মেদ হত্যা মামলা, সাবেক এএসপি ফজলুল হক হত্যা মামলা, গাজীপুরের জয়দেবপুর থানার চুরির মামলা এবং রাজশাহীর রাজপাড়া থানার ডাবলু হত্যা মামলাসহ ২৫টি মামলার তদন্ত নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে র‌্যাব। দায়িত্বশীলরা বলছেন, শিগগিরই এসব মামলার তদন্তকাজ শেষ হবে। যদিও এমন কথা অনেকদিন থেকেই বলা হচ্ছে।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক উইং কমান্ডার এটিএম হাবিবুর রহমান বাংলামেইলকে বলেন, ‘আলোচিত যেসব মামলার তদন্তের ভার দেয়া হয়েছে তার বেশির ভাগ মামলার কাজ সম্পন্ন করেছে র‌্যাব। কিছু মামলার তদন্ত চলছে। আশা করি দ্রুত তা সম্পন্ন হবে।’

গত ২৬ মার্চ র‌্যাব পা দিয়েছে এগার বছরে। ১০ বছরে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এক লাখ ৪৬ হাজার ১১৮ অপরাধীকে গ্রেপ্তার করে তারা। তার মধ্যে ১ হাজার ১১৮ জন তালিকাভুক্ত জঙ্গি ও ৪১৩ জন চরমপন্থি রয়েছে।

সূত্র জানায়, গত ১০ বছরের র‌্যাব ১ হাজার ১২৭টি মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায়। তার মধ্যে ১ হাজার ১১টি মামলার তদন্ত সম্পন্ন করে অভিযোগপত্র দিয়েছে তারা। আর ৬২টি মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়া হয়। আমিনবাজারে নিহত ছয় কলেজ ছাত্রের বিরুদ্ধে পুলিশের দায়ের করা মামলা চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় র‌্যাব। তবে এখনো তদন্ত ঝুলে থাকা ২৫টি মামলার মধ্যে সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা মামলাটি অন্যতম। এ মামলার রহস্য উদঘাটন করতে বারবার হোঁচট খাচ্ছে তারা। খুনীদের শনাক্ত করতে ডিএনএ পরীক্ষার জন্য প্রায় অর্ধশত আলামত আমেরিকায় পাঠানো হয়। তারপরও কাঙ্ক্ষিত ফল আসছে না। তাছাড়া এ মামলার সর্বশেষ অবস্থা জানাতে তাদের আদালতে পর্যন্ত যেতে হয়।

র‌্যাব সূত্র জানায়, চলতি বছরের ২ জানুয়ারি রমনা থানায় ১ হাজার ৩১৪ ভরি সোনার চালান আটক হওয়া মামলা, গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর রামপুরায় সাংবাদিক আফতাব আহম্মেদ হত্যা মামলা, গত বছরের ৩০ জুলাই গুলশানে যুবলীগ নেতা মিল্কি হত্যা, গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর উত্তরায় বিপুল পরিমান ভিওআইপি সরঞ্জামাদীসহ ৩৫ বিদেশি নাগরিক গ্রেপ্তার মামলা, চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারি কিশোরগঞ্জে সোনালী ব্যাংকে সাড়ে ১৬ কোটি টাকা লুট হওয়া মামলা, গত বছরের ২৯ জুলাই সিআইডির সাবেক এএসপি ফজলুল হক হত্যা মামলা, ২০১৩ সালের ১২ জুলাই গাজীপুরের জয়দেবপুর থানার চুরির মামলা এবং রাজশাহীর রাজপাড়া থানার ডাবলু হত্যা মামলার তদন্তে বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।  

জানা গেছে, র‌্যাবের মামলার মধ্যে বর্তমানে বিচারাধীন ৭৭৯টি। বিচার সম্পন্ন হয়েছে ১৩০টি মামলার। সাজার হার শতকারা ৫৬ ভাগ। খালাসের হার ৪৪ ভাগ। অন্যান্য সংস্থা থেকে হস্তান্তরকৃত মামলার সংখ্যা ২৮টি। ২০১২ সালের ২৩ অক্টোবর গাজীপুরের জয়দেবপুর থানা এলাকায় সংগঠিত স্কুল ছাত্র অয়ন হত্যা, গুলশানে গৃহবধূ ফাতিমা সুলতানা ইয়েন হত্যা, খিলক্ষেতে শিশু ইসরাত জাহান ইভা অপহরণ-হত্যা, সাভারের আমিনবাজারে নিরাপরাধ ছয় কলেজ ছাত্র হত্যা, ঝিনাইদহের শৈলকুপায় বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম অপহরণ ও হত্যা, চট্টগ্রামে দুই লাখ ২৭ হাজার পিছ ইয়াবা মামলাসহ কয়েকটি চাঞ্চল্যকর মামলার তদন্তভার পরে র‌্যাবের ওপর ন্যাস্ত হয়।

Share this post

scroll to top
error: Content is protected !!