DMCA.com Protection Status
ADS

সালাউদ্দীন কাদেরের মৃত্যুদন্ডাদেশে মার্কিন সিনেট কমিটি চেয়ার জন ম্যাককেইনের গভীর উদ্বেগ

senate_seal-us-senate-logoক্যাপ্টেন(অবঃ)মারুফ রাজুঃ বাংলাদেশের জনপ্রতিনিধি সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ স্বচ্ছ ভাবে সমাপ্ত না করেই মৃত্যুদণ্ডাদেশ প্রদান করায়  মার্কিন সিনেট কমিটির গভীর উদ্বেগ প্রকাশ , পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরিকে চিঠি ।

johnmacযুক্তরাষ্ট্রের আর্মড সার্ভিস সংক্রান্ত সিনেট কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে বাংলাদেশ সরকারের প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ডাদেশের ব্যাপারে আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন ও মর্মাহত ।

এই কমিটির চেয়ারম্যান জন ম্যাককেইন স্বাক্ষরিত যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন এফ কেরির বরাবর লিখিত এক চিঠিতে এই উদ্বেগের কথা জানানো হয় ।

johnkrসিনেটর জন ম্যাককেইন বিএনপির চেয়ারপারসনের সাবেক বৈদেশিক উপদেষ্টা ও বিএনপির কূটনীতিক দূত জাহিদ এফ সরদার সাদীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে এসব কথা বলেন ।

জন ম্যাককেইনের ওই চিঠিতে বলা হয়, আমরা অবগত যে, সালাউদ্দিন চৌধুরীর মুক্তির আবেদন প্রত্যাখ্যান করে মৃত্যুদণ্ড শিগগিরই কার্যকর করতে পারে।

এতে আরো বলা হয়, আমরা অবহিত সালাউদ্দিন চৌধুরীর বিচারের সময় তার পক্ষের কৌশলীর বক্তব্যকে প্রত্যাখ্যান করে তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।

সালাউদ্দিন চৌধুরীর বিরুদ্ধে যেসময়ে অপরাধ সংঘটনের কথা উল্লেখ করা হয়েছে সে সময় তিনি দেশের বাইরে ছিলেন। এব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক একজন রাষ্ট্রদূতসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি প্রত্যক্ষ সাক্ষী হিসেবে রয়েছেন।

আদালতে তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উত্থাপন করা হয়েছে বাস্তবতার সঙ্গে তার অনেক বৈপরিত্য রয়েছে বলেও ওই চিঠিতে দাবি করা হয়।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় সংঘটিত অপরাধের বিচারের জন্য ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুন্যাল(আইসিটি) নামে যে আদালত গঠন করে সেখানে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিচার ও তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। এদিকে আইসিটির বিচার প্রক্রিয়া, এর নিরপেক্ষতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা ও মানবাধিকার সংগঠনগুলো নানা প্রশ্ন তুলেছে।

এছাড়া আইসিটির কার্যক্রমে বিশ্বের অন্যান্য যুদ্ধাপরাধ আদালতের মান বজায় রাখতে পারেনি বলেও চিঠিতে অভিযোগ তোলা হয়েছে ।

চিঠিতে জন ম্যাককেইন বলেন, সিনেট আর্মড সার্ভিস কমিটির চেয়ারম্যান এবং পদাধিকার বলে এই কমিটির সদস্য হিসেবে বলতে চাই “বাংলাদেশ এমন কোন পদক্ষেপ নিবে না যাতে তার উন্নয়ন কর্মকান্ড ব্যাহত হয়, আমরা বাংলাদেশের জনগণের চাওয়া-পাওয়া স্বীকৃতি দিয়ে দীর্ঘকাল পর্যন্ত সহযোগিতা ও সমর্থন দিয়ে আসছি।

তিনি বলেন , আমরা যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের মধ্যে প্রতিরক্ষা এবং সামরিক বিষয়ক সম্পর্ককেও জোরদার করতে চাই। তবে এটাও আমরা প্রত্যাশা করি, বাংলাদেশ সরকার মানবাধিকার ও মৌলিক ন্যায় বিচারের প্রতি যথার্থ সম্মান প্রদর্শন পূর্বক সালাউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ পূনর্বিবেচনা করে আন্তর্জাতিক মানসম্মত নিরপেক্ষ বিচার নিশ্চিত করবে।”

জন ম্যাককেইন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সব চেয়ে প্রবীণ, বিজ্ঞ এবং ক্ষমতাধর সিনেটর।

যিনি ২০০৮ সালে ওবামার সাথে রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ছিলেন। তিনি ইউএস সিনেটের প্রতিরক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান পদেও নিযুক্ত ।

Share this post

scroll to top
error: Content is protected !!