DMCA.com Protection Status
ADS

মির্জা ফখরুল,মির্জা আব্বাস,খন্দকার মোশাররফ এবং আবদুস সালামের জামিন আবেদন নামঞ্জুর

image_83013_0বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলটির চার নেতার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক মো. রুহুল আমীন শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

জামিন আবেদন নামঞ্জুর হওয়া অন্য নেতারা হলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবদুস সালাম।

এর মধ্যে ফখরুল, আব্বাস ও আবদুস সালামকে রমনা থানায় পুলিশের দায়ের করা তিন মামলায় এবং খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে গুলশান থানায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা একটি অর্থপাচার মামলায় জামিন নামঞ্জুর করা হয়। জামিন শুনানিতে আসামিপক্ষে উপস্থিত ছিলেন- অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, অ্যাডভোকেট মাসুদ আহাম্মেদ তালুকদার, অ্যাডভোকেট মোসলে উদ্দীন জসিম, অ্যাডভোকেট আব্দুল খালেক মিলনসহ অন্যান্য বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা।

এর আগে গত ১৬ মার্চ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শাহরিয়ার মাহমুদ আদনানের আদালতে আত্মসমপর্ণ করে রমনা থানায় দায়েরকৃত তিনটি ও শাহবাগ থানার একটি মামলায় জামিন আবেদন করলে শুনানি শেষে ফখরুল, আব্বাস ও আবদুস সালামের জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।

গত ৯ মার্চ এসব মামলায় ফখরুল-আব্বাস-সালামসহ বিএনপির যুগ্ম-মহাসিচব আমানুল্লাহ আমান ও ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল হক নাসিরের হাইকোর্টের দেয়া আগাম জামিন বাতিল করে দেন আপিল বিভাগ।

এদিকে গত ১৬ মার্চ দুদকের দায়ের করা অর্থপাচার মামলায় তিন দিনের রিমান্ড শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

এরআগে গত ১৩ মার্চ খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে তিন দিনের রিমান্ডে নেয়ার আদেশ দেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শামসুল আরেফিন।

গত ১০ ফেব্রুয়ারি ওই মামলায় ড. মোশাররফ হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন পেলেও গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সুপ্রীমকোর্টের আপিল বিভাগ তা বাতিল করে দেন। এরপর ১২ মার্চ রাতে তাকে আটক করে পুলিশ।

Share this post

scroll to top
error: Content is protected !!