DMCA.com Protection Status
ADS

মিতসুবিশি-ইউএফজে বৃত্তি পেলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০ শিক্ষার্থী

image_80152_0.450jpgজাপানের মিতসুবিশি-ইউএফজে ফাউন্ডেশন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ৩০ মেধাবী শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান করেছে।

সোমবার নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে আয়োজিত এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে কৃতি শিক্ষার্থীদের এই বৃত্তি প্রদান করা হয়। মিতসুবিশি-ইউএফজে ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান শিজেমিতসু মিকি শিক্ষার্থীদের হাতে বৃত্তির চেক তুলে দেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত শিরু সাদোশিমা প্রধান অতিথি এবং মিতসুবিশি-ইউএফজে ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক উশিয়াকি উজায়া বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীন ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জীবন কুমার মিশ্র।  

উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক আশা প্রকাশ করেন মিতসুবিশি-ইউএফজে ফাউন্ডেশন বৃত্তি বাংলাদেশের মানব সম্পদ উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ এবং জাপানের মধ্যে বিভিন্ন ক্ষেত্রে দীর্ঘদিনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বিরাজ করছে। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে জাপানের জনগণ এবং গণমাধ্যম আমাদের নানাভাবে সহযোগিতা ও সমর্থন দিয়েছে।’ চলমান এই বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরো জোরদার হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

জাপানের রাষ্ট্রদূত শিরু সাদোশিমা সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ গঠনে মেধাবী শিক্ষার্থীদের একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে জাপানের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে এবং দুদেশের সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরও জোরদার হবে।’  

বৃত্তিপ্রাপ্তরা হলেন খোন্দকার মো. নাসির উদ্দিন (আরবী), অনিন্দিতা রানী ভৌমিক (প্রাণিবিদ্যা), আসমাউল হুসনা (প্রাণিবিদ্যা), মোসা. সোনিয়া খাতুন (পরিসংখ্যান), মো. নাহিদ ফেরদৌস পবন (অর্থনীতি), সুমাইয়া চৌধুরী (মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ), সুমাইয়া ফারহানা সুমি (ভাষাবিজ্ঞান), মো. হারুনুর রশিদ (লোক প্রশাসন), সুজিত কুমার বালা (গণিত), মো. মমিনুর রহমান (ফলিত রসায়ন), আছিয়া আফরিন (একাউন্টিং), মো. জাফর আস সাদিক (পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান), তনিমা সাহা শম্পা (মার্কেটিং), আফসানা জাহান (ফার্মেসী), শামসিয়া সোবহান (ফলিত পরিসংখ্যান), উম্মে সালমা সুমি (অনুজীববিজ্ঞান), যুথিকা মন্ডল (অনুজীববিজ্ঞান), তনিমা মেগডালিনা কোরাইয়া (শান্তি ও সংঘর্ষ), রাম প্রসাদ চক্রবর্তী (অনুজীববিজ্ঞান), উম্মে হাবিবা (ইসলামিক স্টাডিজ), মিরাজুল ইসলাম (পরিসংখ্যান), মো. উজ্জ্বল হোসেন (উদ্ভিদবিজ্ঞান), অনিক পাল (প্রাণরসায়ন), নাফিসুল হক (লোক প্রশাসন), মোসা, জান্নাতুল মাওয়া (ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট), ফারজানা হামিদ (সংগীত), সাজু সাহা (মার্কেটিং), মো. আবু আল ইসলাম (উদ্ভিদবিজ্ঞান), হাসিবুল হাসান (পরিসংখ্যান) এবং মার্জিয়া সুলতানা (পুষ্টি ও খাদ্য)।

Share this post

scroll to top
error: Content is protected !!