DMCA.com Protection Status
ADS

র‌্যাবকে বাঁচাতেই ম্যাজিস্ট্রেটের ক্ষমতা প্রত্যাহারঃ মির্জা ফখরুল

image_94722_0ব্রাহ্মণবাড়ীয়ায় দায়েরকৃত হত্যা মামলা থেকে র‌্যাবকে বাঁচাতেই জেলায় সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুন নাহারের ‘আমলে নেয়ার ক্ষমতা’ কেড়ে নেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।



শুক্রবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলায় র‌্যাব-১৪ এর বিরুদ্ধে যে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছিল সেই মামলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুন নাহার সরাসরি নবীনগর থানাকে হত্যা মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করার নির্দেশ দেন। তবে এর একদিন পর হঠাৎ করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুন নাহারের “আমলে নেয়ার ক্ষমতা” সরকার কর্তৃক প্রত্যাহার করা হয়েছে।’



তিনি বলেন, ‘ম্যাজিস্ট্রেটের “আমলে নেয়ার ক্ষমতা” কেড়ে নেয়ার ঘটনা র‌্যাবকে বাঁচানোর কৌশল হিসেবেই দেখছে বিরোধী দলসহ দেশের সচেতন জনগোষ্ঠী। ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলায় সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুন নাহারের ‘আমলে নেয়ার ক্ষমতা’ প্রত্যাহারের ঘটনায় সরকারের গণবিরোধী নৃশংস ঘৃণ্য চরিত্রই আরেকবার উন্মোচিত হলো।’



বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘দেশের সার্বিক অবস্থা এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি দেখলেই বুঝতে কষ্ট হয় না যে, দেশটা একটা দুর্বৃত্তদের রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। ক্ষমতা আঁকড়ে রাখতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দানবে পরিণত করা হয়েছে ব্যক্তিগত ও দলীয় স্বার্থসিদ্ধির জন্য। আর এই দানবাকৃতি আইন প্রয়োগকারী সংস্থাটিকে দিয়ে বিরোধী দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষকে গুম, খুন, অপহরণের এক সর্বনাশা কর্মকাণ্ড চালানো হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের ঘটনায় র‌্যাবের জড়িত থাকার বিষয়টি যে সরকারের মদতেই হয়েছিল তা ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার ঘটনা তারই প্রমাণ বহন করে। এই ভয়ঙ্কর র‌্যাবকে দিয়েই বর্তমান অবৈধ সরকার অন্যায় ও অবৈধ কাজ করাতে গিয়ে জনসমাজে এক ভয়ঙ্কর বিভিষিকাময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। র‌্যাব এখন টাকার বিনিময়ে মানুষ হত্যার বাণিজ্য শুরু করেছে।’



বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অবিলম্বে ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলায় র‌্যাব-১৪ এর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ নথিভুক্ত এবং দ্রুত তাদের বিচার প্রক্রিয়া শুরু করার জোর দাবি জানান।

Share this post

scroll to top
error: Content is protected !!